ত্বক নরম ও কোমল করার ৫টি সহজ উপায়

ত্বক কোমল করার ৫টি সহজ উপায়, ত্বক শুষ্ক ও ফ্যাকাসে হয়ে যায়। তাই শীত এলেই ত্বকের যত্ন নিতে হয় একটু বেশি। শিশুর ত্বক অনেক নরম ও কোমল থাকে এটা আমরা সবাই জানি।

শীতে শিশুর ত্বকের মতোই নরম কোমল ত্বক পেতে চাইলে ত্বকের আদ্রতা যাতে ঠিক থাকে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। আপনি ত্বক নরম রাখার ক্রিম ব্যবহার করতে পারেন। তবে ঘরোয়া ভাবে প্রাকৃতিক কিছু উপাদান দিয়েও আপনি রেশমি মসৃণ ত্বক পেতে পারেন।

ত্বককে যতটা সম্ভব আর্দ্র রাখতে হবে। প্রতিদিন নিয়মিত ২ বার বা প্রয়োজনে ৩ বার ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন। ত্বকের শুষ্ক ভাব দূর হয়ে নরম ও মসৃণ হবে।

তাই আজকে আপনাদের জন্য রইলো ত্বককে শুষ্কতার হাত থেকে বাঁচাবার কিছু উপায়- আসুন জেনে নেই সেই উপাদান ও তাদের ব্যবহার বিধি।

ত্বক কোমল করার ৫টি সহজ উপায়

ধাপ-১। অলিভ অয়েলঃ

অলিভ অয়েল, ত্বক কোমল করার ৫টি সহজ উপায়
অলিভ অয়েল

একটি ছোট পাত্রে ৩ টেবিলচামচ অলিভ অয়েল নিয়ে এর সাথে ১ টেবিলচামচ নারিকেল তেল দিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে নিন।

এই তেলের মিশ্রণটি থেকে কিছুটা তেল এক হাতের তালুতে নিয়ে আরেক হাতের তালু দিয়ে ঘষতে থাকুন যতক্ষণ না পর্যন্ত হাতের তালু গরম হয়। তারপর হাত দুটি দিয়ে মুখে তেল ম্যাসাজ করতে থাকুন। প্রতিদিন এভাবে করুন।

ধাপ-২ অ্যালোভেরা জেল :

অ্যালোভেরা জেল, ত্বক কোমল করার ৫টি সহজ উপায়
অ্যালোভেরা জেল

ত্বক কোমল করার ৫টি সহজ উপায়, অ্যালোভেরা জেল ত্বককে শীতল ও মসৃণ করে। সতেজ অ্যালোভেরা জেল দিনে দুই বার ত্বকে লাগান।

কিছুক্ষণ রেখে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। অ্যালোভেরা জেল চুল ও ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। দোকানে থেকে কেনার চেয়ে নিজেই ঘরেই তৈরি করতে পারেন অ্যালোভেরা

অ্যালোভেরা এখন বিভিন্নভাবে প্রসাধনী হিসেবে পাওয়া যায়, যার মধ্যে অন্যতম অ্যালোভেরা জেল। তবে বাজারে আসল যেসব জেল বিক্রি করা হয় তাতে ভেজাল থাকে।তাই সবচেয়ে ভালো ঘরেই তৈরি করুন অ্যালোভেরা জেল

ধাপ-৩ কফির গুড়ো

কফির গুড়ো, ত্বক কোমল করার ৫টি সহজ উপায়
কফির গুড়ো

শুধু পানীয় হিসেবেই নয়, রূপচর্চা ও চুলে রং করা থেকে শুরু করে হাতের দুর্গন্ধ দূর করতেও ব্যবহার করা যায় কফি

ত্বকের মৃত কোষ দূর করতে এক্সফলিয়েটিং স্ক্রাব হিসেবে ব্যবহার করা যায়।  শুষ্ক এবং প্রাণহীন ত্বকে জেল্লা ফেরাতেও পারে।

খানিকটা নারিকেল তেল, কয়েক ফোঁটা ভ্যানিলা এসেন্স এবং পরিমাণ মতো কফি মিশিয়ে ঘন মিশ্রণ তৈরি করে তা মুখের ত্বক, শরীর, পা এবং হাত স্ক্রাবিং করতে ব্যবহার করা যাবে।

ত্বকের বলিরেখা দূর করতে বেশ উপকারী কফি। খানিকটা কফি নিন। এর অর্ধেক পরিমাণ পানি মিশিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করুন।

সঙ্গে কয়েক ফোঁটা টি ট্রি এসেনশিয়াল তেল মিশিয়ে হাত ঘুরিয়ে ত্বকে ম্যাসাজ করতে হবে। এরপর পরিষ্কার পানি দিয়ে ত্বক ধুয়ে ফেলতে হবে।

শীত শীত ভাব আর কফির কাপে চুমুক। কফির এই পরিচিত এই দৃশ্যের বাইরেও কফির গুড়োকে কাজে লাগাতে পারেন ঘরের নানা কাজে। 

খাবার পুড়ে বাসনের তলায় লেগে গেলে সহজে এসব পোড়া খাবার উঠানো যায় না। উঠতে না চাইলে আগে কফির গুঁড়ো সেই অংশে ভালো করে ঘষে দিন।

এরপর ডিশ ওয়াশিং সাবান স্ক্রাবারে নিয়ে ভালো করে ঘষে তুলে ফেলুন। ফ্রিজের দুর্গন্ধ সরাতে একটু কফির গুড়ো ফ্রিজের এক কোণে রেখে দিতে পারেন।

গাছের গোঁড়া থেকে একটু দূরে টবের চারধারে ছড়িয়ে দিন কফির গুঁড়ো এবং মাটির সাথে মিশিয়ে দিন ভালো করে। এতে টবে অতিরিক্ত পানি জমে যাওয়া রোধ হবে। সার হিসেবেও কাজ করবে।

ধাপ-৪ কমলা লেবুর খোসা

কমলা লেবুর খোসা, ত্বক কোমল করার ৫টি সহজ উপায়
কমলা লেবুর খোসা

বেশ কিছু স্টাডিতে দেখা গেছে নিয়মিত কমলা লেবুর খোসাকে কাজে লাগিয়ে যদি ত্বকের পরিচর্যা করা যায়, তাহলে ত্বকের অন্দরে ভিটামিন সি । অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং আরও সব উপকারি উপাদানের মাত্রা বাড়তে শুরু করে। যার প্রভাবে ত্বকের অন্দরে পুষ্টির ঘাটতি দূর হয়। সেই সঙ্গে ত্বক ফর্সা হয়ে ওঠে এবং সৌন্দর্য বাড়ে ।

কমলা লেবু শীতকালীন ফল হলেও এখন সারা বছরই পাওয়া যায়। প্রচুর পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ এ ফলটি খাওয়ার পাশাপাশি ত্বকের যত্নেও খুবই উপকারি।

তবে এর সঠিক ব্যবহার না করলে ত্বকের পক্ষে সেটা ক্ষতিকারকও হতে পারে। কমলা লেবু খাওয়ার পর সাধারণত আমরা খোসা ফেলে দেই। কিন্তু অনেকেই জানি না যে, কমলার খোসায় রয়েছে অসাধারন পুষ্টিগুণ

ত্বক নরম ও কোমল করার ৫টি সহজ উপায়

কমলা লেবুর খোসার গুঁড়ো ১ চামচ নিয়ে তার সঙ্গে ১ চামচ চন্দন গুঁড়ো এবং বাদাম গুঁড়ো মিশিয়ে নিয়ে তাতে ২-৩ ড্রপ লেবুর রস এবং গোলাপ জল ফেলে একটা পেস্ট বানিয়ে নিতে হবে।

যখন দেখবেন প্রতিটি উপদান ভাল করে মিশে গেছে, তখন মিশ্রনটি মুখে লাগিয়ে কম করে ৫-১০ মিনিট অপেক্ষা করতে হবে।

সময় হয়ে গেলে হলকা গরম জল দিয়ে ধুয়ে ফলতে মুখটা। প্রসঙ্গত, প্রতিদিন এই পেস্টটা মুখে লাগালে ত্বকের উপরে জমে থাকা মৃত কোষের স্তর সরে যাবে।

সেই সঙ্গে ত্বকের অন্দরে পুষ্টির ঘটতি দূর হতে শুরু করবে। ফলে সৌন্দর্য বাড়বে চোখে পরার মতো।

ধাপ-৫ মধু ও দুধ

 মধু ও দুধ ত্বক কোমল করার ৫টি সহজ উপায়
মধু ও দুধ

বিভিন্ন রোগ নিরাময়কারী হিসেবে বহুকাল আগে থেকেই দুধের সঙ্গে মধু মিশিয়ে খাওয়ার প্রচলন চলে আসছে।

মধুর মধ্যে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট,অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল  অ্যান্টিফাংগাল উপাদান।দুধের মধ্যে রয়েছে ভিটামিন এ, বি, ডি। রয়েছে ক্যালসিয়াম, প্রাণিজ প্রোটিন  ল্যাকটিক অ্যাসিড

দুধের সাথে মধু মিশিয়ে লোশন তৈরি করুন এবং সারা শীতে এটা আপনার তকে লাগান। দুধের পুষ্টি উপাদান ত্বকে পুষ্টি সরবরাহ করে। মুখ ও হাতে এই লোশন লাগিয়ে ২০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে আপনার ত্বক নরম ও কোমল হবে।

শুধু শীতকালেই নয়, গরমের সময়েও অনেকে ত্বকের শুষ্কতা নিয়ে সমস্যায় ভোগেন। নিত্যদিনের ব্যস্ততায় কারই বা সময় আছে আলাদা ভাবে ত্বকের একটু বেশি যত্ন নেয়ার।

কিন্তু ঠিকমতো যত্ন না নিলে ত্বক শুষ্ক ও রুক্ষ্ম হয়ে যায়, ত্বকের উজ্জ্বলতা হারায়, ত্বকের উপরিভাগ কালো হয়ে আসে এবং ত্বক ফেটে যায়।

50% LikesVS
50% Dislikes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *