ওজন বাড়ানোর সাতটি উপায়

ওজন বাড়ানোর সাতটি উপায়

ওজন বাড়ানোর সাতটি উপায় , ওজন কমানো নিয়ে যেমন অনেকে মুশকিলে পড়েন, তেমনই ওজন বাড়ানো নিয়েও ভুগে থাকেন অনেকেই। যত চেষ্টাই করা হোক না কেন, ওজন বাড়ে না।

আমাদের শরীরের ওজন সঠিক কি না তা পরীক্ষা করার উপায় হলো বডি মাস ইনডেক্স (বিএমআই) বা উচ্চতা ও ওজনের অনুপাত।

ওজন বাড়ানোর উপায়

বিএমআই চার্ট অনুযায়ী ওজন কম হলে তা বাড়ানো জরুরি। নয়তো ওজনহীনতা আপনার নানারকম ভোগান্তির কারণ হতে পারে।

এমনকিছু উপায় আছে যা মেনে চললে মাত্র সাত দিনেই আপনি স্বাস্থ্যবান হতে পারবেন। তবে সেজন্য অনিয়ম করলে চলবে না।

ওজন বাড়াতে হবে নিয়ম মেনেই। জেনে নিন মাত্র সাত দিনে ওজন বাড়ানোর সাত উপায়-

শুকনো ফল: 

ওজন বাড়াতে খেতে পারেন শুকনো ফল। এক্ষেত্রে আপনার জন্য সবচেয়ে উপকারী হলো বাদাম, খেজুর ও কিসমিস।

দিনের শুরুটা হোক বাদাম. কিসমিস ও খেজুর দিয়ে। কারণ এসব খাবার থেকে প্রচুর ক্যালরি মেলে। এই ক্যালরি আপনার ওজন বাড়াতে সাহায্য করে।

একটু বেশি করে খান: 

আপনার ওজন না বাড়ার কারণ কিন্তু কম খাবার খাওয়া। তাই প্রতিদিন যতটুকু খান, তার থেকে খানিকটা বাড়িয়ে খেতে হবে।

প্রতিদিনের খাবারের চার ভাগের একভাগ বাড়িয়ে খেতে হবে। তবে অতিরিক্ত খাবেন না যেন। সেক্ষেত্রে হিতে বিপরীত হতে পারে।

উচ্চ ক্যালরি যুক্ত খাবার: 

খাবার যেন উচ্চ ক্যালরি যুক্ত হয় সেদিকে খেয়াল রাখবেন। খেতে পারেন ঘি, মাখন, ডিম, পনির, কোমল পানীয়, গরু-খাসির মাংস,

আলু ভাজা, মিষ্টি জাতীয় খাবার, চকলেট, কন্ডেনস্ড মিল্ক, ডিম, কিসমিস, খেজুর, দই, কলা, আঙুরের জুস, আনারস ইত্যাদি। কারণ এসব খাবারে প্রচুর ক্যালরি থাকে।

ফল ও শাক-সবজি: 

ফল ও শাক-সবজি যেমন ওজন কমাতে সাহায্য করে তেমনই ওজন বাড়াতেও সাহায্য করে। কারণ কিছু ফল আছে যাতে প্রচুর ক্যালরি থাকে।

তাই ওজন বাড়াতে চাইলে আম, কাঁঠাল, লিচু, কলা, পাকা পেঁপে, মিষ্টি কুমড়া, মিষ্টি আলু, কাঁচা কলা ইত্যাদি খান।

ঘুমের আগে মধু ও দুধ: 

ওজন বাড়াতে প্রতিবেলা পেটপুরে পুষ্টিকর খাবার খাওয়ার পাশাপাশি আরও কিছু দিকে খেয়াল রাখতে হবে। যেমন ঘুমের আগে মধু ও দুধ খাবেন।

এটি আপনার শরীরে বাড়তি ওজন যোগ করবে। প্রতিরাতে ঘুমের আগে এক গ্লাস দুধের সাথে এক চা চামচ মধু মিশিয়ে খাবেন।

শরীরচর্চা করুন: 

শরীরচর্চা যে শুধু ওজন কমানোর ক্ষেত্রে প্রয়োজন, এমন নয়। ওজন বাড়াতেও এটি কার্যকর। কিভাবে? আপনি যদি প্রতিদিন শরীরচর্চা করেন তবে হজমশক্তি ও ক্ষুধাভাব বাড়বে।

নির্ধারিত সময়ে ক্ষুধা লাগার কারণে খাবারে রুচিও বাড়বে। আর তখন পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ করলে ওজন বাড়বেই।

পর্যাপ্ত ঘুম: 

ওজন বাড়াতে আপনাকে সাহায্য করবে পর্যাপ্ত ঘুম। এর পাশাপাশি দুশ্চিন্তামুক্ত থাকাও জরুরি। কারণ দুশ্চিন্তামুক্ত থাকলে খুব সহজেই আপনার ভালো ঘুম হবে। দৈনিক অন্তত সাত-আট ঘণ্টা ঘুম হলেই আপনার ওজন বাড়বে নিশ্চিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *